আজকের খবর

বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন

শুক্রবার রাতে যশোর থেকে ছেড়ে আসা বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে ট্রেনটির চারটি বগি পুড়ে যায়। এখন পর্যন্ত চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে এবং আট জন আহত হয়েছেন তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজে জরুরি বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

যশোরের বেনাপোল থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকায় ফিরছিল বেনাপোল এক্সপ্রেস। হঠাৎ করে গোপীবাগে যাত্রীরা আগুন দেখতে পায়। এতে তারা আতঙ্কিত হয়ে ট্রেন থেকে নামতে শুরু করে। আগুন লাগার খবরে ট্রেন চালক ট্রেনটি থামিয়ে দেন। এ সময় বেশিরভাগ যাত্রী নামতে পারলেও কয়েকজন যাত্রী নামতে পারেননি তারা সেখানেই আগুনেপুড়ে মারা যান। এখন পর্যন্ত চার জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন

শুক্রবার রাত ৯টা ৫ মিনিটে আগুন লাগার সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এ কথা নিশ্চিত করেছেন, ফায়ার সার্ভিসে ডিউটিরত অফিসার রাকিবুল হাসান।
তিনি বলেন, রাজধানীর গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস নামে ট্রেনটিতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ট্রেনটি তখন চলন্ত অবস্থায় ছিল।খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য মোট আটটি ইউনিট পাঠানো হয়। টানা ২ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। ট্রেনের মোট চারটি বগি পুড়ে গেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর শুরু হয় উদ্ধার কাজ। এ সময় র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরাও উদ্ধার কাজে সহায়তা করেন।

দুই হাত বের অবস্থায় এক যাত্রী পুড়ে মারা যাওয়ার দৃশ্য

বেনাপোল এক্সপ্রেস এ আগুন লাগা অবস্থায় এক বগিতে দুই হাত বের অবস্থায় এক যাত্রী পুড়ে মারা যাওয়ার দৃশ্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। লোকটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করেছিল স্থানীয় লোকজনেরা। কিন্তু তার স্ত্রী ও বাচ্চা পুড়ে মারা যাওয়ায় ”বের হয়ে কি হবে? বলে তিনি বের হতে চাননি। এরপর তিনি সেখানে পুড়ে মারা যান।

ছোট মেয়েকে বাঁচানোর জন্য তাকে জানালা দিয়ে ফেলে দিই

মেহেরপুর থেকে সপরিবারে ঢাকায় ফিরছিলেন জনাব আশরাফুল। ৯ জানুয়ারি তার দুবাই যাওয়ার কথা কিন্তু আর যাওয়া হচ্ছে না। সবকিছু পুড়ে গেলেও পরিবারকে নিরাপদে বের করতে পেরেছেন। তিনি আমাদের বলেন, আমরা বেনাপোল এক্সপ্রেস এর ”ছ” বগিতে ছিলাম হঠাৎ আগুন আগুন শব্দ শুনতে পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলাম। ধোয়ায় কিছু দেখা যাচ্ছিল না। ছোট মেয়েকে বাঁচানোর জন্য তাকে জানালা দিয়ে ফেলে দিই। নিচে এক লোক ধরে ফেলায় বাঁচে গেছে।

আরো বলেন, এরপর স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে অনেক কষ্টে বের হয়েছি। আমি নিজে জানালা দিয়ে ঝাঁপ দিয়ে বের হয়েছি। এদিকে আমার ৯ তারিখ দুবাই যাওয়ার কথা কিন্তু আর যাওয়া হচ্ছে না। ট্রেনের ভিতরে আমার লাগেজ, পাসপোর্ট ও নগদ ৫০হাজার টাকা পুড়ে গেছে । কিছুই বাঁচাতে পারিনি। বিদেশ যাত্রা বাতিল হলেও পরিবারকে রক্ষা করতে পেরেছি তাতেই আমি খুশি।

আগুন দেখে ভয় পেয়ে যাই সবকিছু রেখে ট্রেন থেকে লাফ দিই

এদিকে লালমাটিয়া গার্লস কলেজের অধ্যাপক এস এম জয় জানান, আমি ও আমার স্ত্রী কলকাতা থেকে ফিরছিলাম। আমরা ”ছ”বগিতে উঠেছিলাম কিন্তু সায়দাবাদ থেকে ট্রেন ছাড়ার কিছুক্ষণ পর হঠাৎ ট্রেন থেমে যায়। আমরা মনে করেছি স্টেশনে পৌঁছে গেছি কিন্তু হঠাৎ আগুন দেখে ভয় পেয়ে যাই সবকিছু রেখে ট্রেন থেকে লাফ দিই।

দুই মেয়ে নিয়ে ঢাকায় ফিরছিলেন তানিয়া

কুষ্টিয়ার থেকে দুই মেয়ে নিয়ে ঢাকায় ফিরছিলেন তানিয়া। হঠাৎ ট্রেনটিতে আগুন লেগে গেলে দুই মেয়েকে নিয়ে ট্রেন থেকে লাফ তিনি। এ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, আমি কুষ্টিয়া থেকে দুই মেয়েসহ ঢাকায় ফিরছিলাম। হঠাৎ আগুন আগুন চিৎকার শুনতে পাই। কেউ একজন ট্রেনের চেইন টান দিয়ে ট্রেন থামিয়ে ফেলে। আমি ও আমার দুই মেয়ে ট্রেন থেকে লাফ দিই।

বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন লাগার ঘটনায় মারা যাওয়া চার জনের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে রাখা হয়েছে। এই চারজনের মধ্যে একজন নারী ও একজন শিশু সনাক্ত করা গেছে। বাকি দুই জনের মরদেহ এখনো সনাক্ত করা যাই নিই।

যাদের মরদেহ সনাক্ত করা যায়নি, তাদের ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে সনাক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা রেলওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ সেতাফুর রহমান।

বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন দেওয়ার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ড. খ. মুহিত উদ্দিন বলেন এটি যে নাশকতা সেটা স্পষ্ট। এটি পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আসতে হবে। এই মুহূর্তে কি কারনে হয়েছে তা বলা না গেলেও নাশকতা সেদিন কষ্ট। এটি ইচ্ছে করে পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। আহত আটজনকে ঢাকার মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে তাদের সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক।

প্রধানমন্ত্রীর শোক প্রকাশ

এদিকে বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন দেওয়ার ঘটনায় হতাহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন জানিয়ে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সহকারি প্রেস সচিব সারোয়ার আলম সরকার বলেন প্রধানমন্ত্রী অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা নাশকতা কি না তা খতিয়ে দেখতে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে এবং নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন।

তদন্ত কমিটি গঠন

শুক্রবার রাত ১২টায় বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশ রেলওয়ে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী মোঃ সৌমিক শাওন কবিরকে প্রধান করে এই সাত সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

বেনাপোল এক্সপ্রেসের চার বগিতে আগুন দেওয়ার কারণে বেনাপোল এক্সপ্রেস সহ বিভিন্ন রুটের মোট ২২টি ট্রেন দুই দিন না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এই দুই দিন হল নির্বাচনের আগের দিন ৬ জানুয়ারি ও নির্বাচনের দিন ৭ জানুয়ারি।

আরো পড়ুন

ময়মনসিংহে ট্রেন ও বালুবাহী ট্রাক সংঘর্ষ|নিহত ৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *